1. admin@prothomaloonlinenews.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১১:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বর্তমান সময়ের সুন্দরী ও গুনী নাটক অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ ‘আমরা দুঃখিত, লজ্জিত, বিব্রত, নাটক ‘ঘটনা সত্য’ বিবৃতিতে আফরান নিশো ও মেহজাবিন চৌধুরী পর্ণকাণ্ডে জেল হেফাজতে গেলেন শিল্পার স্বামী রাজ কুন্দ্রা ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠনঃ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভিকারুননিসার অধ্যক্ষকে শিক্ষক নামের কলঙ্ক বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম রাজশাহীতে আজ ২৪ ঘণ্টায় ১৮ জনের মৃত্যু বিএনপি`র আমলেই শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস-নৈরাজ্য ছিল: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বঙ্গোপসাগর থেকে ১১ জেলে জীবিত উদ্ধার ইমন-আইরিন নতুন সিনেমায় করোনার উৎস সম্পর্কিত তথ্য-প্রমাণ নষ্ট করেছে বেইজিং: মার্কিন সিনেটর
ব্রেকিং নিউজ :
বর্তমান সময়ের সুন্দরী ও গুনী নাটক অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ ‘আমরা দুঃখিত, লজ্জিত, বিব্রত, নাটক ‘ঘটনা সত্য’ বিবৃতিতে আফরান নিশো ও মেহজাবিন চৌধুরী পর্ণকাণ্ডে জেল হেফাজতে গেলেন শিল্পার স্বামী রাজ কুন্দ্রা ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠনঃ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভিকারুননিসার অধ্যক্ষকে শিক্ষক নামের কলঙ্ক বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম রাজশাহীতে আজ ২৪ ঘণ্টায় ১৮ জনের মৃত্যু বিএনপি`র আমলেই শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস-নৈরাজ্য ছিল: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বঙ্গোপসাগর থেকে ১১ জেলে জীবিত উদ্ধার ইমন-আইরিন নতুন সিনেমায় করোনার উৎস সম্পর্কিত তথ্য-প্রমাণ নষ্ট করেছে বেইজিং: মার্কিন সিনেটর

জীবন যুদ্ধের লড়ায়ে খুকির গল্পগাথা

  • প্রকাশকাল: মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০
  • ২৭৩ দেখা হয়েছে

জীবন যুদ্ধে প্রতিটি মানুষকে লড়ায় করে বাঁচতে হয়। তারপরও মানুষ স্বপ্ন দেখে, বেঁচে থাকতে চাই এই পৃথিবীতে। সুখের সন্ধানে সুখের নীড় বাধতে মানুষ নতুন কত পরিকল্পনা করেন। একজন খুকির জীবনেও ছিল স্বপ্ন, ভালোবাসার আকাঙ্খা। স্বামী সংসার পরিবার এইসব স্বপ্ন ছিল তার মনে। কিন্তু খুকির স্বপ্ন থাকলে কি হবে? তার পথে বিছানো ছিল কাঁটার গাছ। যে গাছ বেয়ে উঠতে গিয়ে পড়ে গেছেন। বিয়ে করেও সংসার করা হয়ে উঠেনি। অবহেলিত খুশির সাথে ৭০ বছরের বৃদ্ধের বিয়ে আর একমাস পর স্বামীর সংসার ভেঙ্গে যাওয়া খুকি যখন ক্ষত বিক্ষত তখন খুকি বাসায় জায়গা চাইলেও তার ভাই বোনেরা তাকে মেনে নেন নাই। তাদের আপত্তির কারনে মা বাবাও তাকে নীড়ে ফিরতে দেয় নাই।

অসহায়, অবহেলিত খুকি যখন পথে পথে, থাকার জায়গা নাই, রাস্তায় যখন তার বিছানা তখন খুকির মতোন একটা মেয়ের স্বপ্ন থাকাটায় বড় বিষয়। ঠিক সেই সময়ে রাস্তার পড়ে থাকা একটি ম্যানিব্যাগ যখন খুকি পড়ে পেলেন। অসহায় খুকি ম্যানিব্যগটিতে থাকা টাকা নিজেই খরচ করতে পারবেন। কারন সেই সময়ে অসহায় অবহেলিত একটা মেয়ের কাছে ১ টাকাও অনেক বড় বিষয়৷ কিন্তু না, তিনি যে একজন সৎ, নিষ্ঠাবান মেয়ে। তার পরিচয় দিলেন আসল মানিব্যাগের মালিককে মানিব্যাগ ফেরত দিয়ে। বিনিময়ে উপহার হিসাবে পেলেন ১৫০ টাকা। সেই টাকা দিয়েই আবার শুরু করলেন নতুন করে।

নতুন প্রত্যাবর্তন শুরু হলো নিউজ পেপার বিক্রির মাধ্যমে। পায়ে হেঁটে হেঁটে রাস্তার ধুলো মেখে দিনের পর দিন মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিক্রি করতেন পেপার। পথে থাকা মানুষদের অনুরোধ করতে পেপার কিনতে। কেউ খুশি মনে পেপার নেওয়া ছাড়া টাকা দিলে নিতেন না৷ পেপার বিক্রয় করতে গিয়ে কখনো কখনো এলাকার ছিনতাইকারীর কাছে তার উপার্জিত টাকা দিয়ে দিতে হয়েছে। কিন্তু তিনি তারপরও হার মানেননি এই সসমাজের কাছে। বেঁচে থাকার প্রত্যায় নিয়ে ভালো কিছু করার স্বপ্ন দেখেছেন।

একজন নিম্ন আয়ের পেপার বিক্রেতা হকার “খুঁকি” দৈনিক ৩০০ টাকা আয় করেন। যেখানে আমরা দিনে ৫০০, ১০০০ টাকা আয় করেও মাসে কোন টাকা সঞ্চয় করতে পারি না সেখানে একজন খুকি ৩০০ টাকা আয় থেকে ১০০ টাকা সঞ্চয় করেন। সেটা আবার হজ্জে যাবার উদ্দেশ্যে। এতিম খানায় দেন ১০০ টাকা, মসজিদ মন্দিরে দেন ৫০ টাকা, ভিক্ষুকদের দেন ১০ টাকা আর নিজে সারাদিনে খান ৪০ টাকার।

🔲 নিজের জন্য ৪০ টাকা
🔲 এতিমখানায় ১০০ টাকা
🔲 মসজিদ ও মন্দিরে ৫০ টাকা
🔲 ভিক্ষুকদের ১০ টাকা
🔲 হজ্জে যাওয়ার জন্য ১০০ টাকা

অসহায় জীবনে হাবুডুবু খাওয়া খুকি নিজের অসহায়ত্ব থেকে কিছু শিক্ষা অর্জন করেছেন যা আমরা অনেকেই এখনো তা অর্জন করতে পারি নাই। তিনি পথে পথে ঘুড়ে জীবনের বড় শিক্ষা অর্জন করেছেন। তিনি বোঝেছেন অসহায়ত্ব মানুষকে কত তলানিতে নিয়ে যায়। গভীর সমুদ্রে অকিজেনের খোঁজ পাওয়া কতটা কষ্টকর। তাই তিনি ডুবে থাকা কিছু অসহায় মানুষকে ডুবরি বেসে উদ্ধারের চেষ্টা করেছেন। তিনি গরীব মহিলাদের সেলাই মেশিন দিয়েছেন, বিধবা মহিলাদের গাভিন গরু দিয়েছেন।

⭕ গরীব মহিলাদেরকে সেলাই মেশিন দিয়েছেন ৬ টা
⭕ বিধবা মহিলাদেরকে গাভিন গরু দিয়েছেন ৩ টা।

আমরা প্রত্যাহিক জীবনে কতটা না সুস্থতার ভান করি। কিন্তু আসলেই কি আমরা এতোটা সুস্থ। আমরা প্রতিটি জাগ্রত মানুষ কোন না কোন দুঃখ কষ্টে জীবন অতিবাহিত করি৷ অথচ আমরা নিজেরা নিজেকে অস্থিতের লড়ায়ে যাকে যা ইচ্ছা বলে ফেলি৷ কিন্তু ভাবুন তো একজন খুকির কাজ কি আমরা করতে পেরেছি? আমরা কি আজ সমাজের অসহায় মানুষদের কথা ভাবি? আমরা কি সমাজের অবহেলিত মানুষকে আশ্রয় দেয়? বেশির ভাগ উত্তর আসবে নেগেটিভ। অথচ আমরা সবাই তাকে পাগলি বলে ডাকি। উপহাস করি যাকে নিয়ে, সে আজ কি করছে আর আমি আপনি কি করছেন?

১৯ বছর ধরে রাস্তার ওলি গোলি ঘুরে ঘুরে সে স্বপ্ন দেখে হজ্জে যাওয়ার। সে আজও অহেলিত। আমাদের সমাজের জন্য সে অনুপ্রেরণার নাম। মানুষ হয়ে মানুষের জন্য কিছু করতে চাইলে মোটা আয় বা সামর্থের প্রয়োজন হয় না, দরকার শুধু একটু আন্তরিকতা আর চেষ্টার। খুকি সেটায় আজ প্রমান করেছেন রাজশাহীর মানুষের কাছে। আসুন আমরা সবাই জেগে উঠি, আর যার যার অবস্থান থেকে সমাজের অবহেলিত মানুষের জন্য সহমর্মিতার হাতটা বাড়িয়ে দেয়। খুকির শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে পরিবার, সমাজ, দেশকে গড়ে তুলি। সোনার বাংলা গড়া হোক আমাদের স্বপ্ন।

“খুঁকি আপা”

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

প্রথম আলো অনলাইন নিউজ © All rights reserved

প্রযুক্তি সহায়তায় BTMAXHOST