1. admin@prothomaloonlinenews.com : admin :
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বুয়েটের উদ্ভাবিত অক্সিজেট সীমিত আকারে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছেন ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর রাজশাহী মেডিকেলে আজ একদিনে মৃত্যু ১৭ জনের বিএনপি শুধু মিথ্যাচারই করেন, এটা তাদের একমাত্র অবলম্বন: ওবায়দুল কাদের চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছেঃ খাদ্যমন্ত্রী চীন থেকে আসছে আরও ৩০ লাখ ডোজ করোনা টিকা বর্তমান সময়ের সুন্দরী ও গুনী নাটক অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ ‘আমরা দুঃখিত, লজ্জিত, বিব্রত, নাটক ‘ঘটনা সত্য’ বিবৃতিতে আফরান নিশো ও মেহজাবিন চৌধুরী পর্ণকাণ্ডে জেল হেফাজতে গেলেন শিল্পার স্বামী রাজ কুন্দ্রা ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠনঃ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভিকারুননিসার অধ্যক্ষকে শিক্ষক নামের কলঙ্ক বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম
ব্রেকিং নিউজ :
বুয়েটের উদ্ভাবিত অক্সিজেট সীমিত আকারে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছেন ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর রাজশাহী মেডিকেলে আজ একদিনে মৃত্যু ১৭ জনের বিএনপি শুধু মিথ্যাচারই করেন, এটা তাদের একমাত্র অবলম্বন: ওবায়দুল কাদের চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছেঃ খাদ্যমন্ত্রী চীন থেকে আসছে আরও ৩০ লাখ ডোজ করোনা টিকা বর্তমান সময়ের সুন্দরী ও গুনী নাটক অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ ‘আমরা দুঃখিত, লজ্জিত, বিব্রত, নাটক ‘ঘটনা সত্য’ বিবৃতিতে আফরান নিশো ও মেহজাবিন চৌধুরী পর্ণকাণ্ডে জেল হেফাজতে গেলেন শিল্পার স্বামী রাজ কুন্দ্রা ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের ফোনালাপ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠনঃ শিক্ষা মন্ত্রণালয় ভিকারুননিসার অধ্যক্ষকে শিক্ষক নামের কলঙ্ক বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম

পর্যাপ্ত ঘুষ না দেওয়ায় পেনশনের ফাইল ইচ্ছাকৃতভাবে বিলম্ব, চিকিৎসার অভাবে মারা গেলেন প্রাথমিকের শিক্ষক

  • প্রকাশকাল: শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০
  • ৬৫২ দেখা হয়েছে

কিশোরগঞ্জের কালটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. সানাউল করীম টাকার অভাবে চিকিৎসা পেলেন না। পরপারে চলেন গেলেন সকলকে কাঁদিয়ে। ৫০ হাজার টাকা ঘুষ দেওয়ার পরও পেনশনের ফাইল ইচ্ছাকৃতভাবে বন্ধ রাখার কারনে পেনশনের টাকা ৬ মাসেও পাননি কিশোরগঞ্জের কালটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ সানাউল করীম। ফলে বিনা চিকিৎসায় পরপারে চলে গেলেন মোঃ সানাউল করীম।

মোঃ সানাউল করীম অবসরোত্তর ছুটি (পিআরএল) এক বছর কাটানোর পর ৬ মাস অতিবাহিত হলেও ঘুষের কারনে তার ফাইল বন্ধ রাখেন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসের অফিস সহকারী কামরুল হাসান। সরকারি নিয়ম অনুসারে অবসরোত্তর ছুটির এক দেড় মাসের মধ্যে পেনশনের টাকা পাওয়ার কথা। গত বছর প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম আল হোসেন অবসরোত্তর ছুটির ১৫ দিনের মধ্যে পেনশনের টাকা শিক্ষকেরা যেন পাই সেটা নিশ্চিত করে পেনশন গ্রাজুইটির শুভ সুচনা করেছিলেন। কিন্তু ঘুষ দুর্নীতির কারনে সহকারি শিক্ষক মোঃ সানাউল করীম ৬ মাসেও পেনশনের টাকা পেলেন না। অসহায়ত্বকে সঙ্গী করে তিনি পরপারে চলে গেলেন।

এই বিষয়ে ঐ শিক্ষকের স্ত্রী বলেন, সানাউল করিম হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন। তার দ্রুত চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার দরকার ছিল। তাই পেনশনের টাকা পেতে অনেক চেষ্টা করেও টাকা পাননি। সে প্রথম দিকে পেনশনের টাকা পেতে শিক্ষা অফিসে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছিল। পেনশনের টাকা না পাওয়ায় তিনি আরো গুরুতর অসুস্থ হয়ে বাড়িতে শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন। গত ১২ নভেম্বর রাতে তার সংকটাপন্ন অবস্থা তৈরি হলে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ভোর ৪টার দিকে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে ভর্তির পর ভোর ৫টার দিকে তার মৃত্যু খবর দেন ডাক্তার।

সূত্রে জানা যায়, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসের অফিস সহকারী কামরুল হাসান অবসর প্রাপ্ত ওই শিক্ষকের কাছে পেনশনের ফাইলের জন্য ৭০ হাজার টাকা দাবি করেন। ওই সহকারি শিক্ষক বিভিন্ন দিক থেকে ৫০ হাজার টাকা জোগাড় করে পেনশনের ফাইল প্রস্তুতির জন্য অফিস সহকারীকে দেন। কিন্তু এরপর অফিস সহকারি তার চাওয়া টাকা না পাওয়ায় আরও টাকার জন্য টালবাহানা করে সময়ক্ষেপণ করে ফাইলটি আটকে রাখেন তিনি। তারপর তার মৃত্যুর সংবাদ শুনে দীর্ঘদিন পর তড়িঘড়ি করে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে বেতন ফিক্সেশন করে জেলা হিসাবরক্ষণ অফিসারের কার্যালয়ে পেনশন ফাইল পাঠান ওই অফিস সহকারী কামরুল হাসান।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে কামরুল হাসান বলেন, নানা জটিলতার কারণে ফাইলটি চূড়ান্তভাবে প্রস্তুত করা যায় নি। সব জটিলতা শেষ করে চলতি সপ্তাহে ফাইলটি জেলা হিসাবরক্ষণ অফিসারের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। ৫০ হাজার টাকার ঘুষ বিষয়ে জানতে চাই তিনি বলেন ২০ হাজার টাকা তার বাসায় দিয়ে এসেছি। বাকি টাকা রবিবার দেওয়া হবে বলে জানান।

সহকারি শিক্ষক মোঃ সানাউল করীমের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে স্মৃতি আক্তার জানিয়েছেন, কামরুল হাসান ঘুষের ওই ৫০ হাজার টাকা থেকে আজ বৃহস্পতিবার ২০ হাজার টাকা ফেরত দিয়ে গেছেন। কি কারনে ফেরত দিয়েছেন সেটা তিনি জানেন না। আগামী রোববার আবার অফিসে গিয়ে খোঁজ নিতে বলেছেন।

এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ এনামূল হক খান বলেন, তিনি সময়মতো ওই পেনশন ফাইলে স্বাক্ষর করেছেন। এতদিন আটকে রাখার এবং ঘুষ নেয়ার বিষয়টি তিনি অবগত ছিলেন না। তিনি বলেন, জানামতে তার পেনশনের টাকা কয়েক মাস আগে পাওয়ার কথা।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সুব্রত কুমার বণিক বলেন, এ ঘটনা নজিরবিহীন। আজকাল কয়েক দিনের মধ্যেই পেনশনের ফাইল নিষ্পত্তি করা হয়। ৫০ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণ এবং দীর্ঘদিন ফাইল আটকে রাখার বিষয়ে তদন্ত করে জড়িত অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা হবে। পাশাপাশি দ্রুততম সময়ের মধ্যে পেনশন ফাইল নিষ্পত্তির ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সুব্রত কুমার বণিক।

মোঃ সানাউল করিম, কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের চিলাকারা গ্রামের পার্শ্ববর্তী কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার কালটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে চাকরিতে অবসরে যান।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

প্রথম আলো অনলাইন নিউজ © All rights reserved

প্রযুক্তি সহায়তায় BTMAXHOST